রবিবার, ২১ জানুয়ারি ২০১৮

Beta Version

বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল খননের দাবি

POYGAM.COM
জানুয়ারি ৬, ২০১৮
news-image

পরিবেশ ডেস্ক: রাজধানী ঢাকার দুহিতা বুড়িগঙ্গা নদীর পানি প্রবাহ সারা বছর অব্যাহত রাখতে এবং স্বাভাবিক পরিবেশ-প্রতিবেশ ফিরিয়ে আনতে নদীটির আদি চ্যানেল খননের দাবি তুলেছেন ঢাকার পরিবেশবাদী সংগঠনগুলো।

তাদের মতে, এক সময়ের প্রাণচঞ্চল বুড়িগঙ্গার প্রবাহমানতা বিনষ্ট করেছে অপরিকল্পিত বসতি, শিল্প-কারখানা, হাসপাতালসহ বর্জ্য নির্গমনকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান। এতসব অত্যাচারে সম্পূর্ণ দখল হয়ে গেছে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল। অথচ ঘন বসতিপূর্ণ পুরান ঢাকার প্রাণ-প্রকৃতি এবং পরিবেশ রক্ষায় বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল দখলমুক্ত করে পানি প্রবাহ নিশ্চিত করা অত্যন্ত জরুরী।

শনিবার (০৬ জানুয়ারি) সকালে শহিদ নগর বেড়ীবাঁধ সংলগ্ন ঘাটে পরিবেশ আন্দোলন মঞ্চ, সম্মিলিত জলাধার রক্ষা আন্দোলন, নিরাপদ ডেভলপমেন্ট ফাউন্ডেশনসহ ১২টি সামাজিক সংগঠন এর যৌথ উদ্যোগে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল খনন করে সারা বছর পানি প্রবাহ নিশ্চিত করার দাবিতে কাগজের নৌকা ভাসানো কর্মসূচি পালন করা হয়।

পরিবেশ আন্দোলন মঞ্চের সভাপতি আমির হাসান মাসুদের সভাপতিত্বে এ কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন, সম্মিলিত জলাধার রক্ষা আন্দোলন এর আহবায়ক ইবনুল সাঈদ রানা, নোঙর-এর সভাপতি সুমন শামস, পরিবেশ বাচাঁও আন্দোলন এর সহ-সম্পাদক মো: সেলিম, গ্রীন মাইন্ড সোসাইটির সাধারন সম্পাদক ফারুক হোসেন, সুবন্ধন সংগঠন এর সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব, স্বপ্নের সিড়ি সমাজ কল্যাণ সংস্থার প্রধান নির্বাহী উম্মে সালমা, বাংলাদেশ সাইকেল লেন বাস্তবায়ন পরিষদের সভাপতি আমিনুল ইসলাম টাব্বুস, পশ্চিম রসুলপুর ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সহ-সভাপতি তৌহিদুল ইসলাম মাতীন, অরুণোদয়ের তরুণ দলের সভাপতি শহিদুল ইসলাম বাবু, পুরান ঢাকা মঞ্চের সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, পরিচ্ছন্ন বাংলাদেশের সভাপতি আবু আল বাশার, বনলতা নারী উন্নয়ন সংগঠনের সভাপতি ইসরাত জাহান লতা প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলে একসময় লঞ্চ, পণ্যবাহী বড় বড় ট্রলার-নৌকা চলত, জেলেরা দল বেঁধে মাছ ধরত। এই অঞ্চলে মানুষের দৈনন্দিন স্বচ্ছ পনির যোগান দিত এই নদী। বসতি স্থাপন, শিল্প-কারখানা, নির্মাণ সামগ্রী, হাসপাতাল বর্জ্য ফেলে সমগ্র চ্যানেলটিকে ময়লার ভাগাড়ে পরিণত করা হয়েছে যা অত্র এলাকার জনস্বাস্থ্যের জন্য মারাত্মক ঝুঁকির সৃষ্টি করেছে।

গত দুই দশকের বেশি সময় ধরে ক্রমবর্ধমান দূষণ ও অব্যাহত আগ্রাসনের ফলে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেলটি দখল হয়ে ছোট হতে হতে মানচিত্র থেকে হারিয়ে যেতে বসেছে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের যথাযথ ভূমিকা না থাকায় বেপরোয়া দখল-ভরাটের কারণে চ্যানেলটি এখন মৃতপ্রায়।

সমাবেশ থেকে বুড়িগঙ্গার আদি চ্যানেল খনন করে এর সুস্থ, স্বাভাবিক ও প্রাকৃতিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনার দাবি জানানো হয়।