সোমবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৭

Beta Version

ওষুধ না খেলেই ধরা পড়বেন!

POYGAM.COM
নভেম্বর ১৯, ২০১৭
news-image

প্রতীকী ছবি: এএফপি

স্বাস্থ্যকথা ডেস্ক: অসুস্থতায় নিয়ম করে ওষুধ না খাওয়ার চেষ্টা অনেকেই করেন। স্বজন ও চিকিৎসকের চোখ ফাঁকি দিয়ে একবেলা না খেয়ে বাধ্য হয়ে হয়তো আরেকবেলা খাচ্ছেন। কিন্তু এবার আর তা হবে না। কারণ, ওষুধেই এখন হজমযোগ্য সেনসর যুক্ত থাকবে; যা না খেলেই বার্তা পাবেন চিকিৎসক।

আজ বুধবার বিবিসি অনলাইনের প্রতিবেদনে বলা হয়, যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন-এফডিএ) প্রথমবারের মতো হজমযোগ্য সেনসর–যুক্ত এই ওষুধ বিক্রির অনুমোদন দিয়েছে। এ ক্ষেত্রে রোগী ওষুধ খেয়েছেন কি না, তা চিকিৎসকেরা বুঝতে পারবেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, এবিলিফাই মাইসাইট অ্যারিপিপ্রাজল নামের ওষুধটি মানসিক রোগ সিজোফ্রেনিয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রে এমন রোগীর শরীরের ভেতরে একটি ডিভাইস বসানো থাকবে; যা শরীরের ভেতরে ওষুধটির কার্যকারিতা বার্তার মাধ্যমে মোবাইল ফোনে পাঠাবে। রোগী যদি চান, তাহলে শরীরের ভেতর থেকে ওই ওষুধের তথ্য তাঁর চিকিৎসকের কাছেও পাঠানো যাবে। তবে ওষুধটি ডিমেনশিয়ায় আক্রান্ত বয়স্ক মানসিক রোগীদের ক্ষেত্রে ব্যবহারের অনুমোদন এখনো মেলেনি।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এতে রোগীদের ওষুধ খাওয়ার ক্ষেত্রে শৃঙ্খলা নিশ্চিত করা যাবে। তবে ওষুধটি খাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে বা জরুরি ভিত্তিতে তা বার্তা পাঠাতে পারবে না। এর জন্য একটু সময় লাগবে বা কখনো তথ্য নাও দিতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, ওষুধটির ভেতরে বালুকণা আকৃতির একটি সেনসর বসানো আছে; যা পাকস্থলীর রসের সংস্পর্শে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে কার্যকর হয়ে উঠবে। রোগী ওষুধটি খেয়েছেন কি না, তা খাওয়ার ৩০ মিনিট থেকে দুই ঘণ্টার মধ্যে রোগীর শরীরে থাকা ডিভাইসটি মোবাইল ফোনে বার্তা পাঠাবে।

এফডিএর কর্মকর্তা মিশেল মাথিস বলেন, মানসিক রোগীদের ওষুধ খাওয়া নজরদারি করা গেলে অন্য রোগীদের জন্যও এই প্রক্রিয়া কাজে লাগানো যেতে পারে। রোগী এবং চিকিৎসকদের সুবিধায় খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন প্রযুক্তির প্রয়োগকে সব সময় উৎসাহিত করবে।